Porasuna | Blog community for Educational Content

JobsNews24

The Most Popular Job Site in Bangladesh

বিসিএস ও আমার ১১ মাস : ৩য় পর্ব (বাংলাদেশ বিষয়াবলী, আন্তর্জাতিক বিষয়াবলী, ভূগোল – বাংলাদেশ ও বিশ্ব এবং পরিবেশ ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা, সাধারন বিজ্ঞান, কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি)

Category: BCS Section Posting Date: 2016-12-10


আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত কারন অনেকটা সময় নিয়ে এই পর্বটা লিখেছি যার কারনে পোষ্ট দিতে অনেক সময় নিয়েছি। আসলে অনেকেই এই বিষয়গুলো জানেন এবং পড়ে শেষ করে ফেলেছেন, তাদের কাছেও আজকের এই লেখায় কিছুটা নতুনত্ব পাবেন আশা করি কারন আমি নিজে যেভাবে এই বিষয়গুলো সাধনা করে আয়ত্তে এনেছি অর্থাৎ শুধুমাত্র আমার নিজস্ব কৌশল বা পদ্ধতি ছিলো সেটাই তুলে ধরার চেষ্টা করেছি এখানে।

আগেও আমি বলেছিলাম; আজও বলছি… বিসিএস হলো বাদ দিয়ে পড়ার পরীক্ষা। অর্থাৎ গদবাধা রাশি রাশি বই মুখস্থ করে ফেললেই যে বিসিএস হয়ে যাবে তা কিন্তু নয়। শুধুমাত্র যে অংশটুকু প্রয়োজন সেটুকুই পড়তে হবে। বাকি সব বেলুনের মাঝে ভরে খোলা আকাশে উড়িয়ে দিলেই হলো।

চলে আসি আসল প্রসঙ্গে:

(ক) বাংলাদেশ বিষয়াবলীতে মোট ৩০ নম্বর; একটু ভালোভাবে প্রস্তুতি নিলে ২২ থেকে ২৫ ++ পাওয়া সম্ভব। কিন্তু কিভাবে…

১) বাংলাদেশের জাতীয় বিষয়াবলী [৬ নম্বর] এর জন্য নবম/দশম শ্রেণীর বোর্ড বই “বাংলাদেশ ও প্রাচীন বিশ্ব সভ্যতার ইতিহাস” বইটি পড়া যায়।
২) বাংলাদেশের কৃষিজ সম্পদ [৩ নম্বর] এর জন্য নবম/দশম শ্রেণীর বোর্ড বই “কৃষি শিক্ষা” বইটি কাজে দেবে।
৩) বাংলাদেশের জনসংখ্যা, আদমশুমারী, জাতী, গোষ্ঠী ও উপজাতি [৩ নম্বর] এর জন্য নবম/দশম শ্রেণীর বোর্ড বই “মাধ্যমিক ভূগোল” বইটি ভালো।
৪ ও ৫) বাংলাদেশের অর্থনীতি ও বাংলাদেশের শিল্প-বানিজ্য [৩+৩ নম্বর] এর জন্য নবম/দশম শ্রেণীর বোর্ড বই “মাধ্যমিক অর্থনীতি” বইটি লাগবে এবং “অর্থনৈতিক সমীক্ষা”-টাও দেখতে হবে।
৬) বাংলাদেশের সংবিধান [৩ নম্বর] এর জন্য কোনোরূপ কথা ছাড়াই সংবিধান মুখস্থ সরি ঠোটস্থ করতে হবে। (সংবিধানের কোন কোন অনুচ্ছেদ একটু বেশি গুরুত্বপূর্ণ তা পরে এক সময় আলোচনা করবো)
৭ ও ৮) বাংলাদেশের রাজনৈতিক ব্যবস্থা ও বাংলাদেশের সরকার ব্যবস্থা [৩+৩ নম্বর] এর জন্য একটি নোট ইনশাআল্লাহ আমি দিয়ে দেয়ার চেষ্টা করবো।
৯) বাংলাদেশের জাতীয় অর্জন, বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব এবং সমসাময়িক নানা বিষয় [৩ নম্বর] সম্পর্কে জানার জন্য i) “সাধারণ জ্ঞান: আজকের বিশ্ব” ও ii) প্রতি মাসে প্রফেসরস এর “কারেন্ট এফেয়ার্স” পড়লেই হবে।

(খ) আন্তর্জাতিক বিষয়াবলীতে মোট ২০ নম্বর; ভালো প্রস্তুতিতে এখানে ১৫+ পাওয়া খুব সহজ। যেমনঃ

১) বৈশ্বিক ইতিহাস, আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক ব্যবস্থা, ভূরাজনীতি
২) আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা ও আন্তরাষ্ট্রীয় ক্ষমতা সম্পর্ক
৩) আন্তর্জাতিক পরিবেশগত ইস্যু ও কুটনীতি
৪) আন্তর্জাতিক সংগঠন সমূহ এবং বৈশ্বিক অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানাদি
৫) বিশ্বের সাম্প্রতিক ও চলমান ঘটনাপ্রবাহ

১-৪ নং বিষয়ের জন্য “সাধারণ জ্ঞান: আজকের বিশ্ব” বইটি পড়লে কাজে দেবে। ৫ নং এর জন্য প্রতি মাসে প্রফেসরস এর “কারেন্ট এফেয়ার্স” পড়লেই হবে।

** এর বাইরেও “প্রথম আলো” এবং “Daily Star” পত্রিকার প্রতিদিনের আন্তর্জাতিক পাতা পড়তে হবে। গুরুত্বপূর্ণ কোনো সংবাদ হলে সেই পাতাটা কেটে সংরক্ষণ করতে হবে অথবা বিষয়টির নোট রাখতে হবে।

** বাংলাদেশ বিষয়াবলী এবং আন্তর্জাতিক বিষয়াবলী উভয়ের জন্যই “বিসিএস এসুরেন্স ডাইজেস্ট” বইটা পড়লে অনেক কাজে দেবে।

Exclusive Technique: প্রতিদিন পড়া শুরু করার পূর্বে এই দিনে কি কি ঐতিহাসিক ঘটনা ঘটেছিল তা জেনে নিতে হবে। যদি এই দিনে গুরুত্বপূর্ণ কিছু ঘটে থাকে তবে সেটার আদ্যেপান্ত জানতে হবে। যেমনঃ আজ অক্টোবরের তিন তারিখ, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় জার্মানি ভেঙে ‘পূর্ব জার্মানি’ এবং ‘পশ্চিম জার্মানি’ হয়। তার ৪৫ বছর পরে ১৯৯০ সালের অক্টোবরের তিন তারিখ অর্থাৎ আজকের এই দিনে আবার দুই জার্মানি এক হয়ে যায়। এখন যদি জেনে রাখা যায় যে; জার্মানি কেনো বিভক্ত হলো আবার কেনোই বা এক হলো। এতে কে এবং কারা সুবিধা পেলো। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এর কোনো প্রভাব ছিলো কিনা? ইত্যাদি তথ্য জেনে রাখলে বিসিএস এর লিখিত এবং ভাইভা পরীক্ষা খুব ভালো হবে বিশেষ করে আন্তর্জাতিক বিষয়াবলীতে। নিচে ঐতিহাসিক তথ্য জানার জন্য কয়েকটি লিংক দিয়ে দিলামঃ
i) history-world.org/ontd.htm
ii) www.infoplease.com/dayinhistory
iii) www.onthisday.com/
(পড়তে পড়তে অনেক সময় bored হয়ে গেলে ইচ্ছে হয় ফেসবুক চালাতে!! ঐ সময়টা ফেসবুক না চালিয়ে এই কাজটা করা যায়। এতে bored ও কমবে সেই সাথে শেখা ও হয়ে যাবে।)

(গ) ভূগোল (বাংলাদেশ ও বিশ্ব), পরিবেশ ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনায় ১০ নম্বর; এখানে ৬+ পাওয়া খুবই সহজ যদি সঠিকভাবে মুখস্থ করে মনে রাখা যায়। এর জন্য নবম/দশম শ্রেণীর বোর্ড বই “মাধ্যমিক ভূগোল” বইটি এবং “সাধারণ জ্ঞান: আজকের বিশ্ব” বইটি উপকারে আসবে।

(ঘ) সাধারণ বিজ্ঞান বিষয়ে ১৫ নম্বর; আমি মনে করি সাইন্স ব্যাকগ্রাউন্ড ছাত্র/ছাত্রীরা একটু কঠোরভাবে পরিশ্রম করলে ১৫তে ১৫ই পাওয়া সম্ভব। আর বাকীদের ১০+ পাওয়া কোনো ব্যাপার না। তবে বিজ্ঞান বিষয়ে:

১) ভৌত বিজ্ঞান [৫ নম্বর]
২) জীব বিজ্ঞান [৫ নম্বর] ও
৩) আধুনিক বিজ্ঞানের [৫ নম্বর] জন্য নিম্মোক্ত বইগুলো পড়তে হবে:

i) নিম্ন মাধ্যমিক বিজ্ঞান [৮ম শ্রেণী]
ii) মাধ্যমিক পদার্থ বিজ্ঞান [৯ম শ্রেণী]
iii) মাধ্যমিক রসায়ন বিজ্ঞান [৯ম শ্রেণী]
iv) মাধ্যমিক জীব বিজ্ঞান [৯ম শ্রেণী]
v) MP3 সিরিজের দৈনন্দিন বিজ্ঞান।

(ঙ) কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তিতে ১৫ নম্বর; এখানে একটু সিরিয়াস হলেই ১২+ পাওয়া যায় অনায়াসে। তবে তার জন্য নবম/দশম শ্রেণীর বোর্ড বই “মাধ্যমিক কম্পিউটার বিজ্ঞান” এবং “কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি” বইটি আপনাকে বেশ সহায়তা করবে। কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি বইটির ডাউনলোড লিংক:
i) www.techtunes.com.bd/edutunes/tune-id/324433
ii) www1.zippyshare.com/v/31529025/file.html

*** Exclusive Link: নিচের এই লিঙ্কটি থেকে নবম/দশম শ্রেণীর যে কোনো বোর্ড বই ডাউনলোড করে নেওয়া যাবে; তাই কেনার কোনো ঝামেলা থাকবে না।
Link: www.ebook.gov.bd/page.php?section=archive&class=9

*** একটা কথা; যারা বিসিএস পরীক্ষা দিবে তাদের জন্য ১০ম থেকে ৩৫তম বিসিএস প্রিলির প্রশ্ন, সেটা যে কোনো বিষয়েরই হোকনা কেনো সমাধান করা অবশ্যই কর্তব্য। [ কারন অনেক সময়ই বিগত বছরের প্রশ্ন কমন পড়ে]

আজ এ পর্যন্তই থাকলো। বাকী রইলো শুধুমাত্র গানিতিক যুক্তি ও মানসিক দক্ষতা এবং নৈতিকতা, মূল্যবোধ ও সুশাসন। ইনশাআল্লাহ পরবর্তীতে এই দুটোর জন্য একটা পোষ্ট দিয়ে প্রিলিমিনারি পরীক্ষার প্রস্তুতি সম্পর্কে সমাপ্তি টানবো। এবং পরবর্তীতে লিখিত পরীক্ষা সম্পর্কে জানাবো। ততদিন সবাই ভালো থাকবেন।

আল্লাহ্ হাফেজ।

মোঃ শরিফ হোসেন
হিসাববিজ্ঞান বিষয়ে সুপারিশপ্রাপ্ত
৩৪-তম বিসিএস।